ব্লগ আর্কাইভস

পথে, প্রদেশে (মাসুদ খান)

পূর্ব প্রকাশের পর…..

জিন্সের প্যান্ট। নীল টি-শার্ট। শার্টের পিছনে লেখা ‘অ্যান্ড মাইল্স টু গো বিফোর আই স্লিপৃঅ্যান্ড মাইলস্ টু গো বিফোর আই স্লিপৃ’। শার্টে কুয়াশা। নীলচে-নীলচে। প্যান্টে কুয়াশা। কাঁধ বেয়ে নেমে আসা লম্বা-লম্বা চুল। চুলেও কুয়াশা। এই হালকা-হালকা শীতের গোধূলিবেলায় ধীরপায়ে হেঁটে চলেছে ওই যে এক কিশোর কবি। নিরুদ্দেশ পথিকের মতো। নির্জন গোহাইল রোড ধরে হেঁটে যাচ্ছে দক্ষিণে। ঘুমিয়ে পড়বার আগ-পর্যন্ত কবিকে পেরুতে হবে মাইল-মাইল পথ। কবি বায়েজিদ মাহবুব। মুগ্ধ হয়ে দেখতে থাকি তার ওই মাথানিচু হেঁটে যাওয়া, অনেকদূর পর্যন্ত। একসময় আস্তে-আস্তে মিলিয়ে যান কবি আরো অধিক Read the rest of this entry

ঊনিশ শো তেতাল্লিশ চুয়াল্লিশ বলে মনে হয়

পূর্ব প্রকাশের পর…..

পিছল মাটি। কাঁচা সড়ক পথে হাঁটখোলার মানুষচলা পথেই আবার নদী উঠে আসা। দপদপিয়া পেরোলোই তো জলঢাকা। লতাবেড়ি দিয়ে প্যাঁচানো আশ্চর্য বিলপাড় জমিগুলি ঘরগুলি সেখানে উঁচু। পারে নোঙর বাঁধা। মলিনাহাটের মানুষ বলে এখানে রাজার বাড়ি ছিল। বসত জায়গাটা আর নেই। চক্রাকারে জমিজমা ঘাটপাট রাজাপ্রজা, জলমাটি, নৌকা ভিড়ানো নদীপাড়। শ্রাবণ ভাদ্রে জল না পাওয়ায় পলি পড়ে বাখরগঞ্জ, ফরিদপুর হয়েছে, আঁড়িয়াল খাঁ শায়েস্তাবাজার। বৃষ্টিতে বাণের জলে সেসব তো শুধু অন্ধকার ঘন স্যাঁতস্যঁতে ঘেমো চলতা পড়া বলেশ্বরের স্থলভূমি। চক্রাকার হাওড় জলাঙ্গি আর সমুদ্রমুখ। অববাহিকার খাঁড়িতে, বাবুবাজার ঘাটে রাহেলারা, চন্দনারা বসে আছে লঞ্চের গলুইয়ের ডগায়। চন্দনারা প্রতীক্ষা করছে আর ভিড়টা কোনদিকে গড়াচ্ছে তা দেখছে। কাল রাত থেকে যাত্রীরা এখানে আসছে। পরেশ, আলি Read the rest of this entry

গল্প: কী যে ভালবাসি! (শরিফা আবেদীন মুন)

পূর্ব প্রকাশের পর…..

শ্যামার বাসায় ফিরতে আজ দেরী হচ্ছে। কলেজ ছুটি হওয়ার কথা সেই তিনটায়। অথচ সন্ধ্যা ঘনিয়ে এলো। শ্যামা ফিরছেনা। মা শিউলী বেশ উৎকণ্ঠার মধ্যে আছে। ভুলে আজ মোবাইলটাও নেয়নি শ্যামা। তাতে কি, অন্যকারো মোবাইল থেকেওতো দেরী হওয়ার কারণটা জানাতে পারতো মাকে। বান্ধবীদের কারো মোবাইল নাম্বারও নেই মায়ের কাছে। শ্যামা সাধারণত: এতটা দেরী করে না। তাছাড়া বান্ধবীদের বাসা বা অন্য কোথাও গেলে মাকে অবশ্যই জানিয়ে যায়। তাছাড়া কলেজের বাইরে কোথাও যাওয়াটা মা একদম পছন্দ করেন না শ্যামাও তা জানে। মা একবার বাইরে যাচ্ছেন আবার ভেতরে প্রবেশ করছেন। অস্থির হয়ে Read the rest of this entry

পথে, প্রদেশে (মাসুদ খান)

আসসালামু আলাইকুম, কেমন আছেন সবাই? আশা করি ভাল আছেন,আমিও আপনাদের দোয়া এবং আল্লাহর অশেস রহমতে ভালে আছি।

বাংলা প্রাণের দেশ, বাংলা গানের দেশ, মায়া ও প্রেমের দেশ, বাংলা যেন এক জাদুবাস্তবের দেশৃ
যে দেশে উজান বেয়ে চলে, প্রেমে, ভাটির ভাসান
স্রেফ ভালোবাসাবাসি দিয়ে যেইদেশে বহু মুশকিল আসান!
যে দেশে সুজন দেখে করলে প্রেম, মরলেও বাঁচাতে পারে তারে
সত্যি-সত্যিই, এবং বারে বারে!
অরূপ রূপের সেই দেশে উড়ে চলো মন
ঘুরে ঘুরে বেড়াই এ-মনপবনের জাদু-উড়াননৌকায়
দূর-দূরান্তের নানা জেলায় জেলায়ৃ
অরূপ রূপের সেই দেশের ছোট্ট একটি জাদুবাস্তব শহর বগুড়া  যেখানে কেবলই মিলে-মিলে যায় রোদ ও কুয়াশা, মিলে-মিলে যেতে চায় স্বপ্ন ও বাস্তব। একাকার হতে চায় প্রাপ্তি আর বাসনাৃসম্ভব-অসম্ভবের দোলাচলে টালমাটাল দাঁড়িয়ে থাকে বগুড়ার ল্যান্ডস্কেপ, এর পথঘাট, বাহন-বিপনী, আড়ত-ইমারত! এখানকার মানুষ ও কবিকুল হাঁটেন স্বপ্নসম্ভব পথে। ঘুরে বেড়ান কুয়াশাসম্ভব মাঠে ও প্রান্তরে! অবাক-করা এক শহর! বেশ কিছুকাল আমিও ছিলাম সেই স্বপ্নশহরে। এক অর্থে বগুড়া আমারও শহরৃআসলে প্রত্যেকেরই থাকে একটি করে শহর, Read the rest of this entry

গল্প: কী যে ভালবাসি

শ্যামার বাসায় ফিরতে আজ দেরী হচ্ছে। কলেজ ছুটি হওয়ার কথা সেই তিনটায়। অথচ সন্ধ্যা ঘনিয়ে এলো। শ্যামা ফিরছেনা। মা শিউলী বেশ উৎকণ্ঠার মধ্যে আছে। ভুলে আজ মোবাইলটাও নেয়নি শ্যামা। তাতে কি, অন্যকারো মোবাইল থেকেওতো দেরী হওয়ার কারণটা জানাতে পারতো মাকে। বান্ধবীদের কারো মোবাইল নাম্বারও নেই মায়ের কাছে। শ্যামা সাধারণত: এতটা দেরী করে না। তাছাড়া বান্ধবীদের Read the rest of this entry

%d bloggers like this: